“চিরায়মানা “

                            রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

যেমন আছ , তেমন আসো, আর করো না সাজ,

বেণী না হয় এলিয়ে রবে, সিঁথি না হয় বাঁকা হবে –

নাই- বা হলো পত্র লেখায় সকল কারুকাজ ,

কাঁচল যদি শিথিল থাকে নাই কো তাহে লাজ ,

যেমন আছ , তেমন আসো, আর করো না সাজ,

 

এসো দ্রুত চরনদু’টি তৃণের পরে ফেলে,

ভয় করো না অলক্তরাগ- মোছে যদি মুছিয়া যাক,

নুপুর যদি খুলে পড়ে- নাহয় রেখে এলে।

খেদ করো না -মালা হতে মুক্তা খসে গেলে,

এসো দ্রুত চরনদু’টি তৃণের পরে ফেলে।

http://nirrjon.blogspot.com
http://google.com

 

হেরো গো ওই আঁধার হল, আকাশ ঢাকে মেঘে,

ও পার হতে দলে-দলে বকের শ্রেনী উড়ে চলে,

থেকে থেকে শুন্য মাঠে বাতাস উঠে জেগে জেগে,

ওই রে গ্রামের গোষ্ঠমুখে ধেনুরা ধায় বেগে।

হেরো গো ওই আঁধার হল, আকাশ ঢাকে মেঘে।

 

প্রদিপখানি নিভে যাবে, মিথ্যা কেন জ্বালো?

কে দেখতে পায় চোখের কাছে -কাজল আছে কি না আছে ?

তরল তব সজল দিঠি মেঘের চেয়ে কালো।

আঁখি পাতা যেমন আছে এমনি থাকা ভালো,

কাজল দিতে প্রদিপখানি মিথ্যে কেনো জ্বালো?

 

এসো হেঁসে সহজ বেশে ,আর করনা সাজ।

গাঁথা যদি না হয় মালা, ক্ষতি তাহে নাই গো বালা,

ভূষণ যদি না হয় সারা ভূষণে নাই কাজ।

মেঘ মগন পূর্বগগন,বেলা নাই রে আজ,

এসো হেঁসে সহজ বেশে,নাই বা হল সাজ।।

 

 

 

Advertisements